দিনযাপন | ০৮০৩২০১৫

ক্যামন একটা অদ্ভুত যন্ত্রণা নিয়ে ঘুরছি … সেদিন হোলিতে লিকুইড রঙ সব গায়ে শুকিয়েছে, রঙে ভেজা মাথা নিয়ে ঘুরেছি কড়া রোদে … তার ফলাফল গত দুইদিন যাবৎ প্রচণ্ড মাথা ব্যথা। সাইনাসাইটিস নামক একটি বদখৎ রোগ থাকলে যা হয় আর কি! … তো, সমস্যাটা যদি শুধুই মাথা ব্যথাই হতো, তাও বুঝতাম। মাথার সাথে সাথে কান, দাঁত, চিবুক থেকে শুরু করে গলার একপাশের রগগুলো পর্যন্ত ব্যথা করতে থাকে। মাথা ব্যথা মানেই ক্লান্তি, কান ব্যথা মানে ভারসাম্যহীন লাগা, দাঁত ব্যথা মানে কিছু খেতে না পারা আর গলা ব্যথা মানে কথা বললেই কাশি! … এ এক অদ্ভুত যন্ত্রণাময় রোগ! …

IMG_20150308_172157এতকিছুর মধ্যেও আজকেও আরেকপ্রস্থ হোলি খেলে ফেললাম। চারুকলায় আবির খেলার পর্বটা আজকে হলো। আজকে অবশ্য আর ঘটা করে দলবল নিয়ে যাওয়া হয়নি। সন্ধি আর আমি নিজেদের মতো করেই গেলাম।সেটারও অবশ্য তেমন প্ল্যানিং ছিলো না কালকে রাত পর্যন্তও। কিন্তু সবমিলিয়ে অনেক সুন্দর সময় কেটেছে …

চারুকলায় ঢোকার পর থেকেই মনের মধ্যে একটা খচখচানি ছিলো যে তার সাথে হয়তো আজকে দেখা হয়ে যেতে পারে! তার সেই তার সাথেও ! কিন্তু দু’জনের কাউকেই দেখলাম না! তার সার্কেলের অন্যদের সাথে অবশ্য দেখা হলো। তাদের একজন আবার আমাকে সরাসরি চেনে, আমাকে দেখে সে আবার তার কথাই জিজ্ঞেস করলো! ‘ অমুক আসবে?’ … আমি বেশ অস্বস্তিতে পড়ে গেলাম যে আমার এখন কি উত্তর দেয়া উচিত! সে আসবে কি আসবে না সেটা তো তাদেরই ভালো জানার কথা! … ঠোঁট উল্টে জানি না বলে সেখান থেকে পালিয়ে বাঁচলাম। … আসেনি ভালোই হয়েছে। নইলে বেহুদাই অস্বস্তি হতো আর মেজাজ খারাপ হতে থাকতো! …

সকাল থেকে ‘নারী দিবসের’ বিভিন্ন রকমের উৎসবের উৎসাহে আমার ফেসবুকের হোমপেজ বন্যার্ত হয়ে যাচ্ছে! আমার কেন জানি ব্যক্তিগতভাবে আলাদা করে নারী – পুরুষ এসব চিন্তা-ভাবনাই অনেক ক্ষেত্রে, বিশেষ করে অনেকগুলো কাজের ক্ষেত্রে কাজ করে না। … আমি নিজেকে নারীবাদীও বলতে চাই না। আমার কাছে আমার সবচেয়ে বড় পরিচয় আমি মানুষ। নারী হিসেবে আমার স্বাধীনতা চাইবার গরজ হয় না, কারণ মানুষ হিসেবেই আমি মনে করি আমি অনেক স্বাধীন একজন সত্তা! মনুষ্যত্বের সীমানা থেকে নেমে এসে আমার বিশেষভাবে ‘নারী’ হবার ইচ্ছা নেই। বায়োলজিক্যালি আমি স্ত্রী – লিঙ্গ, সোশ্যালি আমি মেয়ে/ নারী  – এটা তো আমার অস্বীকার করার বা খুব বিশেষভাবে হাইলাইট করার কিছু নেই। আবার ইউনিভার্সালি আমি একজন মানুষ, সেই পরিচয়ের গুরুত্ব যে এসব বায়োলজিক্যাল আর সোশ্যাল লেবেলিং-এর অনেক ওপরে, সেটাও অস্বীকার করার উপায় নেই। …

এবার দেখলাম খুব ঘটা করে নারী দিবস পালন হচ্ছে। সরকারিভাবেও নাকি অনেক আয়োজন হয়েছে। ‘নারী তুমি মহান’ টাইপ বিষয়-আষয়কে জাহির করার ব্যাপার – স্যাপার আর কি! পুরুষকূল তো বলেই, নারীকুল নিজেও যদি নিজেদেরকে আঙুল দেখিয়ে বলতে চায় ‘ আমি নারী, আমাকে পুরুষের মতো স্বাধীনতা দাও’ , তাহলে আসলে তারা তো নিজেরাই ‘পুরুষ’কেই তুলনীয় এবং নিজেদের চাইতে উচ্চপদস্থ করে রাখছে। তারা তো এভাবে ভাবতে পারতো যে নারী- পুরুষ বিভাজন সামাজিক তত্ত্বের প্রয়োজনে নির্দেশিত, কিন্তু কোনোভাবেই পরস্পরের প্রতি আচরণবিধি নির্ধারক নয়। সেরকম যদি নারী – পুরুষ নির্বিশেষেই ভাবতো, তাহলে আর নারীদের এত ‘স্বাধীনতা’ আর ‘সমঅধিকার’ বলে সরব হবার প্রয়োজন হতো না, আবার পুরুষদেরও নিজেদের গুরুত্ব প্রমাণের জন্য বিভিন্ন রকমের ‘ইগো’ নিয়ে চলতে হতো না! …

এগুলো নিয়ে আমার ভাবনাগুলোকে গুছিয়ে একটা লেখা লিখবো ভাবছিলাম। এই ‘নারী দিবস’ -এই তার মুক্তি দিবো, এরকমও ভাবনা ছিলো। কিন্তু লেখাটা নিয়ে বসা হয়নি। চিন্তাগুলো এখনো তাই ঘরছাড়া হয়ে ঘুরছে মনের অলিতে-গলিতে। … সেটা আদৌ কবে যে লিখতে পারবো জানি না! …

দিনের শেষে আরেকবার প্রমাণ পেলাম যে পৃথিবী আসলে শুধু গোলই না, এটার আবার এক একটা প্রান্ত সুতা দিয়ে বাধাও আছে। নইলে কিভাবে কিভাবে শুধুমাত্র এলাকার রেফারেন্সে পাঠশালার বাপ্পি আর প্রাচ্যনাটের গোপী সেই কাঁটাবনের মোড়ে দাঁড়িয়ে আবিষ্কার করে তাদের পরিচয়ের যোগসূত্রতা! আমি বেশ বিনোদন পেলাম আজকের ব্যাপারটায়। যেই বাপ্পিকে ‘তুই থাক!’ বলে বন্ধুসুলভ ফাপরবাজি করে মুগ্ধর বাইকে উঠতে না দিয়ে নিজে দুই মিনিটের হাঁটা পথ বাইকে লিফট নিলাম, সেই বাপ্পির সাথে পাঁচ মিনিট পর আবার খালি দেখাই হলো না, পরবর্তী প্রায় এক ঘণ্টা সে তো থাকলোই, আবার একই এলাকার হবার সূত্রে নতুন পরিচয়ের তিনজনের সাথে একসাথে বাড়িও ফিরলো! …

দুনিয়াটা বড়ই অদ্ভুত! আরও অদ্ভুত এর প্রতিদিনের ছোটো-খাটো ঘটনাগুলা! … আর জীবন যে কত অর্থবহ, সেটা অনুধাবনের গভীরতা বাড়ানোর জন্য সেসব অদ্ভুত ঘটনাই অতুলনীয় হয়ে পরে মঝে মাঝে! … মনে হয় যে জলজ্যান্ত একটা গল্প চোখের সামনে জীবন্ত হয়ে ঘটছে! … আর আমি সেই গল্পের একজন চরিত্র, আবার পাঠক, আবার চরিত্র, আবার পাঠক, আবার … ! …

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s