দিনযাপন | ১০০৩২০১৫

সকালে ঘুম ভাঙলো তাকে স্বপ্নে দেখতে দেখতে। কি জানি দেখলাম, পুরোটা স্পষ্ট খেয়াল নেই। এটুকু মনে আছে যে তার সাথে কোথাও যাবো তাই সে কাঁটাবনে গ্রুপের নিচে এসেছে। আমি নেমে দেখলাম সাথে আরেক মেয়েকেও নিয়ে এসেছে। মেয়েটা দেখতে একদমই সুন্দর না। অন্তত সে যেমন ছেলে, তাতে করে চেহারায় ভালো নয় এমন মেয়েকে নিয়ে জনসম্মুখে ঘুরবে সেটা খুব অস্বাভাবিক। তো, আমাকে দেখানোর জন্যই নিশ্চয়ই এভাবে এই মেয়েকে নিয়ে ঘুরছে এরকম একটা মনোভাব নিয়ে বিরক্ত বোধ করতে করতেই ফোনের ভাইব্রেশনে ঘুম ভেঙ্গে গেলো। স্বপ্নের ওই বিরক্তিবোধটা কিন্তু রয়েই গেলো! …

এরকম আগেও হয়েছে যে তাকে নিয়ে যখনি স্বপ্ন দেখেছি তখনি স্বপ্নে খুব বিরক্তির একটা কিছু ঘটেছে আর ঠিক ওই অনুভূতিটা নিয়েই আমি ঘুম থেকে জেগে উঠেছি। আরেকদিন স্বপ্ন দেখছিলাম যে আমরা নিউমার্কেট না কোথায় গিয়েছি, সেখান থেকে বের হয়ে সে নিজের মতো করেই রাস্তা পার হয়ে চলে গেলো, কিন্তু আমি পিছনে পড়ে গেলাম। ইন্টেরেস্টিংলি বাস্তবেও আসলে তাই হতো! আমি গাড়ি- রিকশার ব্যস্ততার মধ্যে রাস্তা পার হতে পারতাম না, আর সে আমার দিকে কোনো ভ্রুক্ষেপ না করে একাই রাস্তা পার হয়ে গিয়ে দাঁড়ায় থাকতো। তো সেই স্বপ্নে যেটা হয়েছিলো যে সে রাস্তা পার হয়ে আর দাঁড়ায়নি, গটগট করে হেঁটে সামনে চলে গিয়েছিলো। এদিকে আমি বেশ খানিকটা সময় লাগিয়ে রাস্তা পার হবার পর তাকে আর খুঁজে পাচ্ছিলাম না। ফোন দিচ্ছি, ফোনও ধরে না। ক্রমাগত ফোন দিয়েই যাচ্ছি, ধরছে না। হঠাৎ এমন কি হলো যে এভাবে আমাকে ফেলে সে এভাবে চলে যাবে, এমনকি ফোনটাও পর্যন্ত ধরবে না ভাবতে ভাবতে মেজাজ এমনই খারাপ হলো যে রাগে কাঁপতে লাগলাম আর ফুঁসতে শুরু করলাম। এবং তার পরপরই ঘুম ভাঙ্গলো আর আমি আবিষ্কার করলাম যে সত্যি সত্যিই রাগে কাঁপছি আর ফোঁস ফোঁস করে শ্বাস নিচ্ছি! সেদিন লিটেরেলি সারাদিন তার ওপর আমার ওই মেজাজ খারাপের অনুভূতিটা ছিলো!

যাই হোক, এরকম একটা স্বপ্ন দেখে দিন শুরু হলে কি আর ভালো লাগে? খুবই খিঁচে থাকা একটা মেজাজ নিয়ে দিন কাটালাম।

ইদানীং দেখছি আমার বাসার মানুষজন, বিশেষ করে আমার মা আমার ভবিষ্যৎ নিয়ে ব্যাপক চিন্তিত। আমার সামনে কি প্ল্যান, কি প্রোগ্রাম নিয়মিত ইত্যাদির খোঁজ – খবর নেয়। মানে, ইনডিরেক্টলি তাদের এটাই জানার ইচ্ছা যে আমি আসলে বিয়ে নিয়ে কি ভাবছি। মা’র আশে-পাশের মানুষজন, আই মিন তার কলিগ আর বান্ধবীরা তাকে নিশ্চয়ই আমার বিয়ে সংক্রান্ত বিষয়াদি নিয়ে প্রশ্ন করে, এবং তারপর সে তার সামাজিক মর্যাদার কথা ভেবে চিন্তিত হয়ে এসে আমাকে খোঁচায়, ‘ বিয়ে করবা কবে?’ আদৌ আমি বিয়ে করতে চাই কি না, কিংবা বিয়ে নিয়ে কেন আমি মোটেই এখন চিন্তিত না সেসব নিয়ে আমার দৃষ্টিকোণটা বোঝার গরজ তাদের কম বলেই মনে হচ্ছে। নইলে আমার জীবনযাত্রার যা যা আলামত তারা পায়, তাতে করে এটুকু বুঝে যাওয়া উচিৎ ছিলো যে বিয়ে করে সংসারী হওয়া অন্তত ‘আমার’ ধ্যান – জ্ঞান নয়! এমনকি ৩০ বছর হয়ে যাচ্ছে দেখে বিয়ে না করলে আমার কোনো মহাভারতও অশুদ্ধ হয়ে যাবে না! আব্বুর সাথে তো আর আমার কথা হয় না সরাসরি, যা বলার মা-ই বলে। আমার কাছ থেকে যখন কোনো উত্তর পায় না, তখন বাসায় আমার কোনো বন্ধু-বান্ধব আসলে তাদের কাছে শোনায় শোনায় বলে! এ এক অদ্ভুত যন্ত্রণা! আমার মা আর দশটা টিপিক্যাল মহিলার মতো হইলে তার মুখে এসব কথা, কিংবা এসকল চিন্তা-ভাবনা মানাইতো। কিন্তু, সে কেবল একজন উচ্চশিক্ষিত মহিলাই না, জাতীয় পর্যায়ের একটা বড় কলেজের প্রফেসর, এমনকি বাজার করা থেকে শুরু করে বাসার সবকিছু সে নিজের হাতেই সামলায়। তার মতো একজন স্বাবলম্বী মহিলা যখন একজন টিপিক্যাল মায়ের মতো কানের কাছে ‘বিয়ে’ ‘বিয়ে’ ‘বিয়ে’ ‘বিয়ে’ করে ঘ্যান ঘ্যান করতে থাকে, তখন বাসা থেকে পালিয়ে বাঁচতে ইচ্ছা করে!

ইন্টেরেস্টিং বিষয়টা হচ্ছে যে আমার জীবনে কখনোই কোনোকিছু আমি খুব পরিকল্পনা করে করতে পারি না। এই বিষয়টাই আমার সাথে যায় না। আমি অনেক চেষ্টা করে দেখেছি খুব পরিকল্পনামাফিক কিছু করার, কিন্তু আলটিমেটলি সেটা কখনোই কাজ করে না। যা হয় সবই ‘আউট অব নোহোয়্যার’ কিংবা ‘অল অন আ সাডেন’ হয়! এটাই আমার জীবনের মজা। এটার জন্যই আমার জীবন অনেক অ্যাডভেঞ্চারাস বলে আমার মনে হয়। পড়াশোনা, চাকরি-বাকরি সবকিছুতেই এই হুট-হাট বিষয়টাই কাজ করেছে, এবং সেগুলোর যাত্রাটাও হয়েছে চমকপ্রদ। আমার বিশ্বাস আমার বিয়ের ক্ষেত্রেও তাই হবে। বিয়ে করবো কি করবো না সে ব্যাপারে আমার কোনো পরিকল্পিত চিন্তা-ভাবনা নেই। কারণ, এই ক্ষেত্রেও হয়তো বিষয়টা ‘আউট অব নোহোয়্যার’ ই হয়ে যাবে! …

আমার জীবনের একেকটা ঘটনা গত ২৯ বছর যাবৎ আমার ফ্যামিলি মেম্বাররা দেখে আসছে, অথচ এখনো পর্যন্ত আমার জীবনের এই ‘রোমাঞ্চকর’ দিকটা তারা অনুধাবন করতে পারলো না! আফসোসের জায়গা এটাই!

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s