দিনযাপন | ১৯০৮২০১৫

ক্লান্তি অথবা ক্লান্তিজনিত আলস্য – যেটাই হোক, সেই কারণে গত দুই/তিন দিন যাবৎ দিনযাপন লেখা হচ্ছে না … একদিন অর্ধেক লিখেই ঘুম, একদিন রাতে বাসায় ফিরে ল্যাপটপ নিয়েই বসলাম না, আর আজকে প্রচণ্ড ক্লান্ত থাকা সত্ত্বেও ‘দিনযাপন লিখেই ছাড়বো’ টাইপ ভাবসাব নিয়ে বসছি …

অবশ্য গত দুইদিনে যে খুব আহামরি কিছু ঘটে গেছে তা-ও না …বনানীতে এলএলসিক্স -এর আর্ট হ্যাপেনিং-এ ১৭ তারিখ নাবিল রহমানের এক্সিবিশনের উদ্বোধন ছিলো … আরফুন, আরফুনের বান্ধবী রিজওয়ানা, শামীম ভাই এর সাথে বসে বসে সারা সন্ধ্যা আড্ডাবাজি হলো … এক্সিবিশন-এর টাইম যখন শেষ হলো, তখন আমরা সবাই ওপরে জর্জেস ক্যাফেতে গেলাম … ওখানে গিয়ে দেখি  ওই ক্যাফের যে মালিক, জর্জ, তার সেদিন জন্মদিন … তার জন্য আবার তার কর্মচারীরা সবাই মিলে কেক বানিয়েছে, সেই কেক কাটা হলো … রাত প্রায় সাড়ে নয়টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত জর্জেস-এ বসে বসে খাওয়া-দাওয়া আর আড্ডাবাজি হলো … বাসায় ফেরার পথে রথি ওর গাড়ি করে নামায় দিয়ে গ্যালো …ও-ও কাছেই থাকে, বর্ধিত পল্লবীতে … আমাদের বাসার রাস্তা দিয়েই ইনফ্যাক্ট ওকে বের হতে হয়, ফলে আমাকে বাসায় নামায় দিয়ে যাওয়াটা ওর জন্য খুব বেশি ঘোরা হলো না …

পরদিন আবার এলএলসিক্স-এ আরমিন মুসা’র হিলিং সার্কল সেশন ছিলো … গান গেয়ে গেয়ে মেডিটেশনের মতো … হিলিং সার্কল বিষয়টা পরিচিত, কারণ প্রাচ্যনাটেও বিভিন্ন ফরম্যাটে এইরকম সেশন হয় … তবে, গতকালকের সেশনটা খুব ইন্টেন্স লাগলো না … শেষের দিকে একরকম একটা মুড তৈরি হয়েছিলো … আমাদের হামিং আর বাইরের বৃষ্টির শব্দ মিলায়ে বেশ সুন্দর একটা তরঙ্গ তৈরি হয়েছিলো … কিন্তু জানি না … আমার কাছে সবশেষে খুব ‘ওয়াও!’ টাইপের কিছু লাগে নাই …

যাই হোক, গতকালকে থেকে খুব বৃষ্টি হচ্ছে … একেবারে বর্ষাকালের মতো ঝুম বৃষ্টি … ভাদ্র মাসে অবশ্য এরকম বৃষ্টি হয় … গতকালকে বৃষ্টি নামলো যখন তখন আমি গোসলে, আর ঘরের জানালাও সব খোলা … বৃষ্টিতে মোটামুটি ঘরের অর্ধেক ভিজে শেষ … আজকে আবার কাঁটাবন গেলাম বৃষ্টিতে ভিজে ভিজে, আসলামও ভিজে ভিজে …

মিরপুরে এসে বাসা গোছানোর দৌড়াদৌড়িতে ভায়োলিনের ক্লাসগুলোতে ভাটা পড়লো … ভেবেছিলাম এই সপ্তাহে যাবো, কিন্তু সেটাও হবে না … একেবারে সেপ্টেম্বর মাসের ফার্স্ট মঙ্গলবার থেকেই আবার শুরু করবো ভাবছি … প্র্যাকটিস করার জন্যই তো বসা হয় না … ভায়োলিন প্র্যাকটিসের জন্য একটা নির্দিষ্ট জায়গা সেট করবো বলে ঠিক করে রেখেছি … সেন্ট্রাল রোড থেকে কিবোর্ডটাও নিয়ে এসে সেটারও প্র্যাকটিস করতে শুরু করবো সেটাও চিন্তা করেছি … কিন্তু যেহেতু ঘর গোছানো শেষ হচ্ছে না, সেই নির্দিষ্ট জায়গাটাও বের হচ্ছে না, আর ভায়োলিন বা কিবোর্ড নিয়েও বসা হচ্ছে না … মাঝখানে বনমানুষ-এর শো এর সময় ফুয়াদ ভায়োলিনটা নিলো, শো-তে বাজালো, আমি বাসায় এনে খুলেও দেখিনাই ভায়োলিনটার কি অবস্থা! … আরেকটা জিনিস ভাবছিলাম, সেটা হলো যে মিরপুরেই যখন আছি, তখন আগারগাঁও-এ মিউজিক স্কুলে ভর্তি হয়ে গেলেই তো হয়! … সেন্ট্রাল রোড যাওয়ার চাইতে তো আগারগাঁও যাওয়া সহজ। আর শরীফ ভাইয়ের ক্ষেত্রে যেমন পরিচিত বলে ফাঁকতালে ফাঁকি মারতে পারি, মিউজিক স্কুলে তো সেইটা করতে পারবো না … আপাতত এই ব্যাপারটা নিয়ে একটা চিন্তাভাবনার মধ্যে আছি … দেখা যাক, সিদ্ধান্ত কি নেই …

হঠাৎ করে ঘর গোছানোর গতিতেও ভাটা পড়েছে … যেমন, দুইটা খাট সেট করা হয়েছে, কিন্তু সেগুলার ম্যাট্রেস নাই … তাই খাটে শোয়াও যাচ্ছে না … আবার একটা ঘরে খাটে ম্যাট্রেস দিয়ে সেট করলেও লাভ হবে না, কারণ ফ্যান নেই … আব্বুর বস্তা বস্তা বই একপাশে স্তূপ করে রাখা হয়েছে, কারণ এই মুহুর্তে তার কোনো বইয়ের আলমারি নেই … একটা প্লাইবোর্ডের আলমারি আপাতত বানাতে দেয়া হয়েছে, সেখানে কিছু বই রাখলে অন্তত কয়েকটা বস্তা খালি হবে … আর বাকি বইগুলোর ভবিষ্যৎ নির্ধারণ হতে আরও সময় লাগবে … ক্রোকারিজ রাখার শো-কেস গতকালকে বিকালে ভার্নিশ হয়ে চলে আসছে … আশা করা যাচ্ছে আগামী দুই-তিন দিনে ওইটা গুছানো হলে ঘরের ৪০ শতাংশ জায়গা খালি হয়ে যাবে … আপাতত বালতি বালতি কাচের জিনিসে অমিতের ঘর একটা গুদামঘর হয়ে আছে …

বেশ কয়েকদিন হয়ে গ্যালো সিনেমা দেখা হচ্ছে না … সিনেমা দেখার রুটিনটা আবার শুরু করা দরকার … প্রতিদিন একটা সিনেমা …

বাই দ্যা ওয়ে, আজকে ‘ ওয়ার্ল্ড ফটোগ্রাফি ডে’ গ্যালো … এই বিষয়টা নিয়ে বেশ কিছু পক পক করবো বলে ভেবেছিলাম, কিন্তু এখন আর ইচ্ছা করছে না … ছবি তুলতে ভালো লাগে, তাই তুলি … এইরকম সিম্পল্ভাবেই সবসময় ভেবেছি, এখনো ভাবি … ছবি তুলে বিশ্বজয় করবো টাইপ চিন্তাভাবনা কখনো আসে নাই … এমনকি তিন বছর পাঠশালায় পড়েও না … বরং পাঠশালার বর্তমান পারস্পেক্টিভের সাথে আমার অনেক চিন্তাভাবনা খাপ খায় না … বরাবরই পাঠশালার থট প্রসেস মাথার ওপর দিয়ে যেতো, এখন আরও বেশিই যায় …

যাই হোক, আপাতত আর কিছু না লিখে দিনযাপন শেষ করি, সেটাই ভালো …

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s