দিনযাপন |১৫১২২০১৫

আজকে অনেকবছর পর ১৫ ডিসেম্বর রাতে টিএসসি গেলাম না! ২০০৭ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত প্রতি বছরই এটা বাঁধাধরা রুটিন ছিলো যে ১৫ তারিখ সন্ধ্যা থেকে বা রাতের দিকে টিএসসি থাকবো, ১৬ ডিসেম্বরের প্রথম প্রহরে আতশবাজি আর ফানুস ওড়ানো দেখবো।খুব স্পষ্ট মনে আছে, ২০০৬ সালে যখন ইউনিভার্সিটির ফার্স্ট ইয়ারে পড়ি, তখন ডিইউএফএস এ নিয়মিত গেলেও রাতে বাইরে থাকা কিংবা দেরি করে বাসায় ফেরার অভ্যাস তখনো পর্যন্ত হয়নি। তো ২০০৬ সালের ১৫ ডিসেম্বর রাতে ১২টা সময় শাওন দা ফোন করে বলেছিল, অনেক মজা হচ্ছে! ফানুস ওড়াচ্ছি, আতশবাজি ফুটছে! মিস করলি রে তুই! … আমার স্পষ্ট মনে আছে, জীবনে প্রথমবারের মতো ‘মেয়ে’ হওয়ার দায় থেকে কেঁদেছিলাম!তার পরের বছর থেকে ১৫ ডিসেম্বর মানেই টিএসসি যাবোই, আর ১৬ ডিসেম্বরের প্রথম প্রহরে হাঁ করে অবাক চোখে তাকিয়ে থেকে আতশবাজির খেলা দেখবো – এটা একদম পাক্কা একটা রুটিন হয়ে গিয়েছে।সেই রুটিনটাতেই এ বছর আবার ছেদ পড়লো।‘এখন তো আর সেন্ট্রাল রোডে বাড়ি নাই যে ১২টা পর্যন্ত থেকে তাড়াতাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাওয়া যাবে!’ – হ্যাঁ, এটাই এখন সবচেয়ে বড় কারণ! অনেক কিছুই এখন হয়তো এভাবে আস্তে আস্তে ছেদ পড়তে শুরু করবে! এটা নিয়ে হতাশ হতেও এখন হতাশ লাগছে!

যাই হোক, কালকে সকাল সকাল বের হয়ে যেতে হবে বাসা থেকে, সেটাও আসলে না যাওয়ার আরেকটা ফ্যাক্টর। দেরি করে বাসায় ফেরা মানে ঘুমাতেও দেরি, উঠতেও কষ্ট। তাই টিএসসি যাওয়ার ব্যাপারে অমিতের প্রবল নিরুৎসাহেই বাসায় চলে আসা। কালকে সাভারে সার্কাস সার্কাসের শো। আমার কোনো নির্দিষ্ট কাজ নাই, অমিতের আছে। সেট-এর টিমে আছে ও। আমি বরাবরই নিজের উৎসাহেই গ্রুপের যেখানেই যেই শো হোক, সেই টিমের সাথে সাথে যাই। ওই অভিজ্ঞতাটার একটা অংশ হয়ে থাকতে ভালো লাগে আমার। কালকেও সেজন্যই যাওয়া। যাবো, ঘুরবো, ছবি-টবি তুলবো, নাটকের কোনো একটা কাজে লাগলে হেল্প করবো – এই তো!

আজকে বিকালে টিউশনি পেয়েছি যে ওই বাসায় গিয়েছিলাম। বাসা খুঁজতে গিয়ে এক কাহিনী হয়ে গেলো! বাসার নাম্বার ১৬/২, আর আমি কোন খেয়ালে ১৬/৪ নাম্বার বাসা খুঁজতে লাগলাম! সেই বাসা তো আর পাই না! অনেকক্ষণ ঘুরে ১৬/৪ নাম্বার যেই বাসাটা পেলাম, সেটা বেশ পুরান একটা বাসা! দেখেই বোঝা যায় যে ওই বাসার কোনো বাচ্চা অন্তত ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে পড়বে না! বাচ্চার মা-কে আবার ফোন করে বাসার নাম্বার জিজ্ঞেস করতে গিয়ে আবিষ্কার করলাম এতক্ষণ ভুল বাসা খুঁজছি! এদিকে ১৬/২ নাম্বার বাসাও আর কোথাও খুঁজে পাই না! বেশ কিছুক্ষণ পর বুঝলাম যে ১৬/২ নাম্বার বাসা অনেক পেছনে ফেলে এসে আমি একটা ভুল গলিতে ঢুকে বাসা খুঁজে হন্যে হচ্ছি! যাই হোক, শেষমেশ সঠিক বাসা খুঁজে পেলাম! একটু বেখেয়ালের জন্য কত হুজ্জত হয়ে গেলো!

কথাবার্তা বলে বেশ ভালোই মনে হলো সবকিছু। শনি-রবি-সোম-মঙ্গল এই চারদিন রুটিন করেছি আপাতত। ইংরেজি, অংক, বিজ্ঞান, ভূগোল পড়াতে হবে। শনিবার থেকে ফর্মালি পড়ানো শুরু করবো। অবশ্য বাচ্চা নাকি পড়তেই বসতে চায় না! পড়ালেখার মুড আসতেই নাকি প্রায় ৩০ মিনিট চলে যায়! দেখা যাক, শনিবার থেকে কি হয়!বাচ্চা ডোরেমন দেখে! ডোরেমন নিয়ে গল্প-টল্প করে ওকে উৎসাহী করা যায় কি না দেখতে হবে! যেমন ওর পিচ্চি বোনটা অগি অ্যান্ড দ্য ককরোচেস দেখে, আমিও সেটা নিয়ে বেশ গল্প করে-টরে ওর মন জয় করে ফেললাম! এবার ছেলেটাকে কদ্দুর কি করা যায় দেখতে হবে! পড়াবো তো ছেলেকেই, সুতরাং মন জয় করাটা জরুরি তো ছেলেটারই!

আজকে আর তেমন কিছু লিখবো না। তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়াটা জরুরি। সকাল সকাল উঠতে হবে, বের হতে হবে। ২০০৮ সালে পোস্ট করা একটা কবিতা সকাল থেকে ‘অন দিজ ডে’ তে উঁকি দিয়ে আছে। ভেবেছিলাম আর যাই হোক, কবিতাটা আজকে এখানে শেয়ার করবো। কিন্ত এখন সেটা করতে গেলে অনেকটা সময় লেগে যাবে। সেটা এখন আর ইচ্ছা হচ্ছে না। যতদূর মনে পড়ে স্বপ্ন/শাওন দা এদেরকে রিলেট করে কবিতাটা লিখেছিলাম। কবিতাটার নাম দিয়েছিলাম ‘আজ সব আড়ি’। পুরোটা কবিতা অনেক বড়। জাস্ট শেষের কিছু লাইন না হয় শেয়ার করি আপাতত –

মনে পড়ে সবকিছু … ছায়াদের, কায়াদের

অস্থির দিনগুলো

স্বান্তনা, কান্না

অযথা স্বপ্ন দেখা

অযথাই ভাবনা

দিন যায়, রাত যায়

ভাবি বসে অসহায়

কি করি, কি করা যায় …

মন আছে সবারই, মনে আছে সবারই

সব কথা, সব গান, সব মায়া, সব ছায়া

তবুও ভুলে থাকা, ভুলবার ভান করা

ছায়া দেখে সরে পড়া

পাশ দিয়ে চলে যাওয়া

আড়চোখে কথা বলা

চোখ বুজে পথ চলা

কথা নেই, দেখা নেই

আজ নেই, কাল নেই

প্রতিদিন, নেই নেই …

আজ সব আড়ি …

অতঃপর ভুলে যাওয়া

অন্তত চেষ্টা

‘দূর ছাই’ বলে ওঠা

দেখে নেয়া শেষটা …

আজ সব আড়ি …”

 

আজকের মতো তাহলে দিনযাপন এখানেই ইস্তফা দেই … রাত ২টা বাজে … ঘুমাতে যাই …

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s