দিনযাপন । ৩০০৯২০১৬

আজকে বাসায় ফিরতে পারবো ভাবি নাই …  

ঢাকা ইউনিভার্সিটির ভর্তি পরীক্ষা … জাহাঙ্গীরনগরের ভর্তি পরীক্ষা … বিসিএস পরীক্ষা … তারমধ্যে শেখ হাসিনা ফিরবে … নিউইয়র্কে তাকে হাজার হাজার মানুষ মিলে নাকি ওয়েলকাম করেছে … ঢাকায় আওয়ামীলীগের সমর্থকরা না করলে কি চলে? … সারা দেশ থেকে আওয়ামীলীগের কর্মীরা সব এসে এয়ারপোর্টে ভিড় করেছে … যখন বাসায় ফিরছি তখন সব রাস্তা প্যাকড … আর চারদিকে শুধু মানুষ আর মানুষ … বিকালে আলিয়াঁস ফ্রঁসেস-এ গিয়েছিলাম … সেখান থেকে বের হয়েছি সাড়ে ৫টার দিকে … ৬টা পর্যন্ত দাঁড়িয়ে থেকে সিএনজি পাই না … পরে আবার কিছুক্ষণ ৪ নম্বরে মমতাজ প্লাজার ভেতরে তানভির ভাইয়ের কম্পোজের দোকানে আধাঘন্টার মতো বসে রইলাম … তারপর আবার বের হয়ে কতক্ষণ সিএনজির জন্য দাঁড়িয়ে থেকে রিকশায় সামনে আগাতে থাকলাম… কলাবাগানের মাথায় এসে একটা সিএনজি পেলাম … তাও ৩০০টাকার নিচে যাবে না … তবে সিএনজিওয়ালাটা বেশ স্কিল্ড ছিলো … সে এটা-সেটা গলি-টলি ঘুরে জ্যামের রাস্তাগুলো পার হয়ে গেলো … বাসায় যখন পৌছালাম তখন সাড়ে ৮টার মতো বাজে … রওনা দিয়েছিলাম পৌনে ৭টায় …

14316708_891303607672143_3469150534066434319_n

ঘুমে আমার দুনিয়ে ভেঙ্গে আসতেসে এখন … আজকে মিন্নির বাসায় যাওয়ার প্ল্যান ছিলো … অনেকদিন আগের প্ল্যান … মূলত ওই প্ল্যান আমার আর তৃষার করা … কিন্তু যেই অবস্থা আজকে … আমার আর ওই পর্যন্ত যাওয়ার কোনো অবস্থা নাই … একবার ভেবেছিলাম যে বাসায় ফিরে ফ্রেশ হয়ে কাপড়-চোপড় সব গুছিয়ে নিয়ে বের হবো … সবচেয়ে জরুরি স্কুলের কাগজ-পত্রগুলো বাসায় রাখা … ওইগুলো নিয়ে মুভ করতে চাইছিলাম না … আর আজকে স্কুল থেকে আবার এত জায়গায় গেছি, সাথে এক্সট্রা কাপড়-চোপড় নিয়ে একেবারে বের হয়ে যাবো সেটাও ইচ্ছা করছিলো না … আর বাসায় ফেরার সময় রাস্তার যেই অবস্থা দেখলাম … তাতে করে যেটুকুও যাবার ইচ্ছা ছিলো সেটাও নাই হয়ে গেলো …

ইনফ্যাক্ট আই অ্যাম নট ইন আ মুড টু হ্যাভ আ পার্টি নাও … মন মেজাজ খুব খারাপ হয়ে আছে গত বুধবারের ক্লাসের ঘটনার পর থেকে … কালকেও রাতের বেলা একজনের সাথে ফেসবুকে কথা হচ্ছিলো … আর আমি খুব হতাশার কথা লিখছিলাম আর হাউমাউ করে কাঁদছিলাম … এখনো যদি আমি একটু মনোযোগ দিয়ে ওইগুলা চিন্তাভাবনা শুরু করি, আমার প্রচন্ড কান্না চলে আসবে … কিছুই ভালো লাগছে না আমার … না কাজ … না পড়ালেখা … না বন্ধুত্ব … না আর সব সম্পর্ক … কোনো কিছু নিয়েই কোনোরকমের পজিটিভিটি কাজ করছে না মনে …    সবকিছু থেকেই একটু দূরে সরে থাকতে ইচ্ছা করছে …

আজকে আলিয়ঁস ফ্রঁসেস-এ ফ্রেঞ্চ কোর্সে ভর্তি হয়ে আসছি … ৬মাসের কোর্স … আমি আর নায়ীমী ভর্তি হলাম … গতবছরই আমরা প্ল্যান করেছিলাম যে ফ্রেঞ্চ কোর্সে ভর্তি হবো … কিন্তু তারপর আর বিভিন্ন কারণে সময়-সুযোগ করা হয়নাই … এবার আবারো সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিকে কথাবার্তা বলছিলাম যে ফ্রেঞ্চে ভর্তি হবো … তো আজকে ফাইনালি যাওয়া হলো ভর্তি হবার জন্য … একবার মনে হচ্ছিলো যে সিট পাবো না … এত শেষ সময়ে যাচ্ছি … তারমধ্যে আমরা কেবল শুক্র-শনিবার সব্ধ্যার ব্যাচ হলেই করবো … তো দেখলাম যে একমাত্র শুক্র-শনি সন্ধ্যাবেলারই সিট আছে … বেশ ভালো! ভর্তি হয়ে আসলাম মনের আনন্দে …

কিন্তু সাতসকালে স্কুলে গিয়ে প্যারেন্টস-টিচার্স মিটিং করে, তারপর আবার ৩টা/সাড়ে ৩টা পর্যন্ত থেকে ৩ সেট খাতা রবিবারের জন্য রেডি করে বের হলাম, সেখান থেকে আলিয়ঁস ফ্রঁসেস গিয়ে জানলাম যে ৪টায় না, অফিস খুলবে ৫টায় … আমি ৪টায় অফিস খুলবে জেনে গিয়েছিলাম … তো তখন ওই টাইমটা কি করবো? … ক্ষুধাও লেগেছিলো … বিটারসুইটে গিয়ে স্যুপ খেলাম … এর মধ্যে নায়ীমীও চলে আসলো … তারপর আলিয়ঁস ফ্রঁসেসে গিয়ে ভর্তি … তারপর বাসায় আসার দীর্ঘ প্রক্রিয়া …

এখন প্রচন্ড মাথা ব্যথা আর ঘুম …

মিন্নির বাসায় গেলেও দেখা যেতো গিয়ে ঘুমিয়ে গেছি … কিছুই এনজয় করা হইতো না … তার চেয়ে বাসায় থেকেই ঘুমাই! …

কালকে সকাল সকাল উঠে ওয়ার্কশিট টাইপ করতে হবে দুই/তিনটা … মা’র কাছে পেনড্রাইভ দিয়ে পাঠিয়ে দেবো … কলেজে ডিপার্টমেন্টের পিয়নকে দিয়ে প্রিন্ট, ফটোকপি করায় আনবে … নইলে এইটার জন্য কালকে আবার কাঁটাবনে প্রিন্ট পয়েন্ট পর্যন্ত যাওয়া লাগবে আমার …

আজকে আর লিখতে ভালো লাগছে না … খুব ক্ষুধা লেগেছে … আপাতত খাচ্ছি … তারপর হয়তো ঘুমায় যাবো … তারপর আবার দেখা যাবে গতকালকের মতো ২টার দিকে ঘুম ভেঙ্গে গেছে … তারপর আর ঘুম আসবে না … কালকে তো ঘুম আসছে না দেখে রাহাতের সাথে কথা বলছিলাম, আর সেই কথাবার্তা আমার হতাশার কথা বলতে বলতেই গেলো … আমি শিওর এইসব কথাবার্তায় ওই ছেলে খুব বিরক্ত হয় ইদানীং … প্রথম প্রথম খুব সিম্প্যাথেটিক রেস্পন্স করতো … ওই সিম্প্যাথেটিক রেস্পন্স পেয়ে অতি উৎসাহের চোটে বেশি বেশি করে নিজের হতাশার কথা বলতে শুরু করেছি … এখন দেখছি যে খুব রিলাক্টেন্ট রেস্পন্স দিচ্ছে … মে বি এখন ও ভাবছে যে সারাক্ষণ খালি হতাশার কথাই বলতে থাকে, এর সাথে আর কি কথা বলবো! … সো, আজকে যদি রাতে ঘুম ভেঙ্গে যায়, আজকে নিশ্চয়ই আবার ওকে নক করবো না যে জেগে আছে কি না … কথা শুরু হলেই আবার দেখা যাবে হতাশার কথা শুরু করেছি … ছেলেটার সাথে কথা বলতে আমার ভালো লাগে … অনেক সহজ সাবলীল ভাবে যেকোনো বিষয় নিয়ে কথা বলা যায়…এই সব হতাশার কথা শুনিয়ে বিরক্ত করে কথা বলায় দূরত্ব তৈরি হোক, সেইটা অন্তত চাই না … 

যাই হোক, শেষ করি আজকের মতো …

কাল থেকে অক্টোবর মাস শুরু হচ্ছে … মোস্ট হ্যাপেনিং মান্থ ইন মাই লাইফ … সবচেয়ে বেশি ভুলে যেতে চাওয়া মাস … পুরো অক্টোবর মাসটা রিপ ভ্যন উইঙ্কলের মতো ঘুমিয়ে কাটাতে পারলে ভালো হতো …

আই হেট অক্টোবর …

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s